বিয়ের অনুষ্ঠান না করে ৩০০ জন গরিব মানুষকে পেট ভরে খাওয়ালেন এই নব দম্পতি

বিশেষ প্রতিবেদন, ৩০ মার্চ

এখনকার মর্ডান যুগের সবাই বিয়ের আগে
কি যেন বলে !!
হ্যাঁ – প্রি ওয়েডিং ফটোশুট করে, তার সাথে লাইটিং আরো কত আরম্বড় ,সাজগোজ, জাঁকজমকপূর্ণ আসর বসে বিবাহের।
কিন্তু দেবীপ্রসাদ ভট্টাচার্য ও তিথি দে তারাও বিয়ে করলেন ঠিকই, কিন্তু এই জীবনের গুরুত্বপূর্ণ দিন স্মরণ করে রাখলেন আলোক বর্ণময় জাঁকজমকপূর্ণ সাজসজ্জায় নয়,মানুষের সেবার মাধ্যমে।

এই ধরনের খবর গুলির দিকে দিকে ছড়িয়ে পড়া খুবই দরকার। যত বেশি এই খবরগুলি চারিদিকে ছড়াবে তত বেশি অন্যান্য মানুষরাও এভাবেই হয়তো ভাবতে শিখবে।যেখানে এখনকার শিক্ষিত সমাজ এবং প্রভাবশালী ব্যক্তিদের বেশিরভাগটাই জাঁকজমকপূর্ণ মহারাম ঘরে বিবাহ সম্পন্ন করে কিন্তু দেবীপ্রসাদ ভট্টাচার্য এবং তিথি দের এই ছোট্ট প্রয়াস সত্যিই মনে দাগ কাটার মত।

পেশায় দুজনেই কম্পিউটার সায়েন্সের অধ্যাপক……

এভাবে বিয়ের সিদ্ধান্ত কেন! এর উত্তরে দেবীপ্রসাদ ভট্টাচার্য বলেন,”এমন অনেক মানুষ আছেন যারা দিনের পর দিন খেতে পায় না। আর এক একটা বিয়ের অনুষ্ঠানে খাবার খেয়ে লোকে শেষ করতে পারে না, বেঁচে যাওয়া খাবার প্রচুর নষ্ট হয়, এসব বাড়াবাড়ি ছাড়া আর কিছু নয়…..

বিয়েতে লোকজন খাওয়ানোর আয়োজন করতে যে পরিমাণ অর্থ খরচ হয় তা দিয়ে যদি না খেতে পাওয়া, গরিব অসহায় মানুষের পেট ভরে তবে সেটাই হলো আসল স্বার্থকতা”…..

অতিসাধারণ অথচ অসাধারণ এই বিয়েতে দেবীপ্রসাদ ভট্টাচার্য ও তিথি দে, এই দুজন নবদম্পতি খাওয়ালেন ৩০০ জন গরিব দুঃখী না খেতে পাওয়া মানুষদের….

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *