আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবস।

বিশেষ প্রতিবেদন,৮ মার্চ

কলমে সুষমা দাসঃ হাওড়া

আজ ৮ ই র্মাচ ,আন্তর্জাতিক নারী দিবস।প্রত‍্যেক নারীদের জন‍্য এক বিশেষ দিন।কিন্ত এই নারী দিবস কেন পালন করা হয় ? তার যর্থাথ কারন আছে তা হল,প্রায় ১০০ বছরের ও বেশি সময় ধরে নারী দিবস পালন করা হচ্ছে।শ্রম আন্দোলন থেকে নারী আন্দোলনের সময় শুরু।১৯০৮ সালে ১৫ হাজার নারী নিজেদের কর্মঘন্ট,মজুরী বৃদ্ধি,ভোটদানের অধিকার ইত‍্যাদি নিয়ে নিউইয়ার্কের রাস্তায় আন্দোলন শুরু করে।এই আন্দোলনের এক বছর পর আমেরিকার সোস‍্যালিস্ট পার্টি এই আন্দোলনকে সম্মান জানিয়ে জাতীয় নারী দিবস হিসাবে ঘোষনা করে।জাতিসংঘ ও এটিকে মেনে নেয়।সেই থেকে নারী দিবস পালন হয়ে আসছে এই দিনটি।এই দিনটিকে স্বীকৃতি দিয়েছিলেন,’ক্লারা জেটকিন’ নামে এক র্জামান নারী।তিনি ১৯১০ সালে কোপেন হেগেনে কর্মজীবী নারীদের এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়ার প্রস্তাব দেন।সেই সম্মেলনে ১৭টি দেশের থেকে ১০০জন নারী উপস্থিত ছিলেন,তারা প্রত্যেকে সমর্থন জানান এই প্রস্তাব টিকে।এরপর ১৯১১ সালে প্রথম আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসাবে উদযাপন করা হয়।১৯৭৫ সালে জাতিসংঘ এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দেওয়ার পর থেকে দিনটি পালন হয়ে আসছে।বর্তমানে এখন আমরা পালন করছি।১৯৯৬ সালে দিবস টির প্রথম প্রতিবাদ্য ছিলো ,’অতীতকে উদযাপন আর ভবিষ‍্যতের পরিকল্পনা’।আর এবছরের (২০২১) প্রতিবাদ‍্য হল ,’লিঙ্গবৈষম‍্য কে challenge করার সিদ্ধান্ত।যখন নারী দিবসের  কথা প্রস্তাব করা হয় তখন কোন নির্দিষ্ট দিনের কথা বলা হয়নি, কিন্ত ১৯১৭ সালে রাশিয়ায় যুদ্ধকালীন সময়ে ৮ ই র্মাচ দিন টিকে নির্দিষ্ট করা হয়।প্রত‍্যেক দেশে এই দিন টি পালন করা হয় বিভিন্ন ভাবে।নারী দিবস এর নির্দিষ্ট রং রয়েছে তা হল সাদা,সবুজ,হলুদ।আসলে এই নারী দিবসে প্রত‍্যেক নারীর অধিকার কে সম্মান জানানোর এক প্রতীক।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *